ফ্রীল্যান্সিং : কি শিখবো, কেন শিখবো?

ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কিত বিভিন্ন ফোরাম অথবা ফেসবুক গ্রুপে যে প্রশ্ন গুলো প্রায়শই চোখে পড়ে তা হলো,* “আমি ফ্রিল্যান্সিং করতে চাই। আমার জন্য কোনটা ভালো হবে? ওয়েব ডিজাইন না গ্রাফিক্স ডিজাইন?”* “আমি ওয়েব ডিজাইন শিখবো, আমাকে কি কি শিখতে হবে?”* “ফ্রিল্যান্সিং জগতে কোন কাজের রেট সব চাইতে বেশি?”এই প্রশ্নগুলোর উত্তর অসংখ্যবার, অসংখ্য জায়গায় দেয়া হয়েছে। তারপরেও যখন আবারও এই প্রশ্নগুলো কেউ করে, শুনতে কিছুটা খারাপ লাগলেও আমার মনে হয় তারা কোন রকম ঘাটাঘাটি করা ছাড়াই অযথা প্রশ্ন করতে ভালোবাসে।আপনার জন্য কোনটা ভালো হবে, এটা অন্য কাউকে না জিজ্ঞেস করে আপনার মেধা আর ইচ্ছাকে জিজ্ঞেস করুন। তবেই উত্তরটা পেয়ে যাবেন। অন্য একজন কিভাবে বলবে আপনার জন্য কোনটা ভালো হবে? আপনি কোনটা সহজে আয়ত্ব করতে পারবেন?কাজ শিখবো, ফ্রিল্যান্সিং করবো এমন ইচ্ছে হওয়ার সাথে সাথেই কোন ট্রেনিং সেন্টারে ভর্তি না হয়ে ১-২ মাস সময় নিন নিজের পছন্দ বা উপযুক্ততা খুঁজে বের করতে। আপনি যে ধরনের কাজ সম্পর্কে আগ্রহী, ইন্টারনেট থেকে সেগুলো সম্পর্ক বিস্তারিত ধারনা নিন। প্রায় সব ধরনের কাজেরই প্রচুর পরিমানে লেখা বা ভিডিও টিউটোরিয়াল পাওয়া যায়। সেগুলো পড়ে, দেখে বুঝতে চেষ্টা করুন যে এই কাজটা কেমন, কিভাবে করতে হয। এভাবে আপনার জানা বা পছন্দের তালিকায় থাকা সব কাজ সম্পর্কে ধারনা নেয়া হয়ে গেলে তারপর নিজেকে জিজ্ঞেস করুন, কোন কাজটা আপনার ভালো লেগেছে বা আপনি পারবেন বলে মনে হয়েছে? তারপর ট্রেনিং সেন্টারে ভর্তি হওয়ার সিদ্ধান্ত নিন।এখানে একটা কথা হচ্ছে, ভিডিও দেখে বা ব্লগ পড়ে যদি আপনার মাথায় কিছু না ঢোকে তবে আপনার এটা মনে হতে পারে যে হয়তো ট্রেনিং সেন্টারে ভর্তি হলে সেখানে নিশ্চয়ই কিছু শিখতে পারবো। যদি এমনটা হয়, আমি বলবো আপনার ধারনা সম্পূর্ণই ভূল। ইন্টারনেটে ছড়িয়ে থাকা এত ভালো টিউটোরিয়াল থেকে যদি কিছুই আয়ত্ব করতে না পারেন, ট্রেনিং সেন্টার আপনাকে তেমন কিছু শেখাতে পারবে বলে অন্তত আমার মনে হয় না।এবার আপনার মনে হতে পারে যে তবে কি আমি ট্রেনিং সেন্টারের বিরোধিতা করছি কি না? আমি বলবো মোটেই না। বই পড়ে শেখার চাইতে সরাসরি শিক্ষকের কাছ থেকে শেখা অনেক বেশি কার্যকরী এটা কিন্তু বলার অপেক্ষা রাখে না। কিন্তু যে ছাত্র বই পড়ে কিছু শিখতে পারে না, সে ছাত্র শিক্ষকের কাছে যে বেশি কিছু শিখতে পারবে না, এটাও বলার অপেক্ষা রাখে না।অনেকেরই ধারনা হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং বলতে সাধারনত গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েব ডিজাইন, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশন, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বা ওয়েব সাইট সম্পর্কিত কাজগুলোকেই বোঝায়। এই ধারনাটি সম্পূর্ণই ভূল। ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে আরও অনেক রকমের কাজ পাওয়া যায়। সাপোর্ট এসিসটেন্ট থেকে শুরু করে বিজনেস আইডিয়া ডেভেলপার বা মার্কেট এনালাইসিসের কাজও এখানে পাওয়া যায়।ওয়েব ডিজাইনার হতে হলে কি কি শিখতে হবে? আপনি যখন এই ধরনের প্রশ্ন করবেন, বিভিন্ন জন আপনাকে বিভিন্ন কথা বলবে। তখন আপনি নির্ঘাত কনফিউজড হয়ে যাবেন, কার কথা শুনবেন? আমাকে জিজ্ঞেস করুন, আমি উপদেশ দিব শুধু HTML শিখলেই আপনি ওয়েব ডিজাইনার হয়ে যাবেন। কিন্তু যখন শুধু HTML শিখে কাজ করতে যাবেন, তখন বুঝতে পারবেন যে আপনার আরও কত কি শেখা প্রয়োজন। বড় কোন উদাহরনে না দিয়ে ছোট উদাহরন দেই। কোন ক্লায়েন্ট হয়তো উল্লেখ করে দিবে HTML নয়, HTML5 দিয়ে কাজ করতে হবে। তখন কিন্তু শুধু HTML জানলেই হবে না, HTML এর ভার্সনগুলোর পার্থক্যও আপনার জানা থাকতে হবে।একটু আগেই বলেছি কাজ শেখার আগে সেটা সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন। আপনি এই ষ্টেপটা মানলেই জেনে যাবেন আপনার কি কি শেখা প্রয়োজন। তখন এধরনের প্রশ্ন আর কাউকে করতে হবে না।কোন কাজে ইনকাম কেমন হতে পারে, দয়া করে এই প্রশ্নটা কখনও করবেন না। কারন এটা একান্তই আপনার কাজের অভিজ্ঞতা আর ভাগ্যের উপর নির্ভর করবে। অনেক গ্রফিক্স ডিজাইনার আছে যারা প্রতি ঘন্টা $60-100+ রেটে কাজ করে। আবার অনেক প্রোগ্রামারের ঘন্টা প্রতি রেট $5-10। এখন কি আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইনকে প্রোগ্রামিংয়ের চাইতে দামী কাজ বলবেন? মোটেই না। আমাকে যদি জিজ্ঞেস করেন কোন কাজ সব চাইতে বেশী দামী, আমি বলবো সব কাজই সমান দামী, দরকার শুধু আপনার অভিজ্ঞতার।সব শেষে একটা কথা বলবো। টাকার জন্য কাজ করবো, এমন চিন্তা বাদ দিয়ে যদি পারেন তবে কাজটাকেই নিজের প্যাশন বানিয়ে ফেলুন। দেখবেন কাজ আপনার কাছে সহজ হয়ে গিয়েছে, আপনি অনেক ভালো কাজ করতে পারছেন। তখন আপানকে আর টাকার খোঁজ করতে হবে না, টাকাই আপনার খোঁজ করবে।

You may also like...

1 Response

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!