স্নায়ুকোষ বা নিউরোণ কি? জীবদেহে এর গুরুত্ব সর্ম্পকে জানতে চাই।

প্রশ্ন উত্তরCategory: জীব বিজ্ঞানস্নায়ুকোষ বা নিউরোণ কি? জীবদেহে এর গুরুত্ব সর্ম্পকে জানতে চাই।
Ziaur asked 5 months ago


1 Answers
Ziaur answered 5 months ago

স্নায়ুকোষ বা নিউরোণ কি

স্নায়ুতন্ত্রের গঠনমূলক ও কার্যকরী একককে নিউরন বা স্নায়ুকোষ বলে। মস্তিষ্ক কোটি কোটি স্নায়ুকোষ (নিউরন) দিয়ে তৈরি। মানুষের মস্তিষ্কে রয়েছে ১,০০০ কোটি স্নায়ুকোষ বা নার্ভ সেল।


প্রতিটি নিউরনে প্রধান দুটি অংশ থাকে। যথা : ১. কোষদেহ ও ২. প্রলম্বিত অংশ।

কোষদেহ  
এটি নিউরনের মুখ্য অংশ এবং এটি গোলাকার, ডিম্বাকার, মোচাকার, সুচালো প্রভৃতি বিভিন্ন আকৃতির হয়ে থাকে। কোষদেহের ব্যাস ৬ মাইক্রন থেকে ১২০ মাইক্রন পর্যন্ত হতে পারে। কোষদেহ কোষপর্দা, সাইটোপ্লাজম ও নিউক্লিয়াস এ তিনটি অংশ নিয়ে গঠিত। সাইটোপ্লাজমে গলজি বস্তু, মাইটোকন্ড্রিয়াম , চর্বি, রঞ্জক কণা সহ অসংখ্য নিসল দানা আছে। নিসল দানা নিওরোট্রান্সমিটার বস্তু তৈরী করে। সেন্ট্রিওল থাকে না। তাই নিউরোনের কোষ বিভাজনও হয় না।

প্রলম্বিত অংশ
কোষদেহ থেকে নির্গত বা বহির্গত শাখা-প্রশাখাকে প্রলম্বিত অংশ বলে। এটি দু’ধরনের যথা : ক. ডেনড্রাইট (Dendrite) ও খ. অ্যাক্সন (Axon)।

ডেনড্রাইট
কোষদেহের চারদিকে সৃষ্ট ক্ষুদ্র তন্তুময় শাখাবিশিষ্ট অংশকে ডেনড্রাইট বলে। একটি নিউরনে বহু ডেনড্রাইট থাকে।ডেনড্রাইটগুলোই আসলে মূলত সেই অংশ যা মানব দেহের বিভিন্ন ইন্দ্রিয় থেকে অথবা অন্য নিউরণ থেকে তথ্য গ্রহণ করে। ডেনড্রাইটের সংখ্যা যত বেশি হবে, একটি নিউরণের তথ্য গ্রহণের ক্ষমতাও তত বেশি হবে।

অ্যাক্সন
কোষদেহ থেকে উৎপন্ন বেশ লম্বা ও শাখাবিহীন তন্তুটির নাম অ্যাক্সন। অ্যাক্সনের চারদিকে চ্যাপ্টা সোয়ান কোষ নির্মিত পাতলা আবরণকে নিউরিলেমা বলে। নিউরিলেমা পরিবেষ্টিত অ্যাক্সনকে স্নায়ুতন্তু বলে।
অধিকাংশ ক্ষেত্রে নিউরিলেমা ও অ্যাক্সনের মধ্যবর্তী অঞ্চলে স্নেহপদার্থের একটি স্তর থাকে। এ স্তরটিকে মায়েলিন (Myelin) আবরণ বলে।

মায়েলিন আবরণ অ্যাক্সনকে অন্তরীত করে। নির্দিষ্ট দূরত্ব অন্তর অন্তর অ্যাক্সনে কিছু সংকুচিত অঞ্চল দেখতে পাওয়া যায়, একে র‌্যানভিয়ার-এর পর্ব বলে। অ্যাক্সনের মূল অক্ষের আবরণীকে এক্সোলেমা বলে। অ্যাক্সনের শেষ প্রান্ত বিভক্ত হয়ে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র শাখা সৃষ্টি করে, সেগুলোকে টেলোডেনড্রিয়া বলে। টেলোডেনড্রিয়ার শেষ প্রান্তের স্ফীত অংশের নাম সিন্যাপটিক নব। অ্যাক্সন লম্বায় এক মিটারের বেশি হতে পারে। বহুসংখ্যক নিউরণ মিলিত হয়ে একটি স্নায়ু (Nerve) গঠিত হয়।

সিন্যাপস: 
পরপর দুটো নিউরনের প্রথমটার অ্যাক্সন এবং পরেরটার ডেনড্রাইটের মধ্যে একটি স্নায়ুসন্ধি গঠিত হয়, একে সিন্যাপস বলে।

নিউরন বা স্নায়ুকোষের কাজ :

১. নিউরন বিভিন্ন উদ্দীপনা গ্রহণ করে এবং তদনুযায়ী প্রতিবেদন সৃষ্টি করে।
২. এটি মস্তিষ্কে যাবতীয় স্মৃতি সংরক্ষণ করে।
৩. এটি দেহের বিভিন্ন অঙ্গ ও তন্ত্রের কাজ নিয়ন্ত্রণ করে এবং তাদের মধ্যে সমন্বয় সাধন করে।
৪. এটি পরিকল্পনা গ্রহণ করে এবং তার বাস্তবায়ন করে।
৫) পরিবেশের সাথে দেহের সমন্বয় রক্ষা করে।

error: Content is protected !!